1. admin@betnanews24.com : Betna :
বাজারে আসতে চলেছে ই-সিম | বেতনা নিউজ ২৪
সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:২৪ অপরাহ্ন

বাজারে আসতে চলেছে ই-সিম

তথ্য ও প্রযুক্তি ডেস্ক,
  • প্রকাশিত : শনিবার, ২৭ আগস্ট, ২০২২
  • ৮১ বার পঠিত

তথ্য-প্রযুক্তি ডেস্ক,

 

বাজারে এরককম অনেক টেকনোলজি রয়েছে যার বিষয় বেশিভাগ মানুষ জানেনা। যেমন eSim টেকনোলজি কিছুসময় পূর্বে এসেছে কিন্তু বেশিরভাগ মানুষ এর ব্যাপারে জানে না। আর না জানার মূল কারণ হলো বেশিভাগ স্মার্ট ফোনগুলি এই eSim টেকনোলজি কানেক্টিভিটি অপশানটি প্রোভাইড করে না। কারণ স্মার্ট ফোনের সাথে এই টেকনোলজি যুক্ত করা অত্যন্ত খরচা সাপেক্ষ হয়। আসলে এই টেকনোলজি যুক্ত করার জন্য মাদারবোর্ডে একটি আলাদা করে জায়গা যুক্ত করতে হয়। তবে Apple কোম্পানি নিজের স্মার্ট ফোন গুলিতে eSim-এর অপশনটি প্রোভাইড করে থাকে।

 

স্যামসাং ও মোটোরোলাও এই অপশান প্রোভাইড করে কিন্তু তাদের সবচেয়ে দামি ফোন গুলিতেই শুধু এই অপশনটি থাকে। এমনকি GOOGLE পর্যন্ত eSim সাপোর্ট দেয়। কিন্তু গুরুত্বপূর্ন প্রশ্ন হচ্ছে eSim টেকনোলজি কাজ কিভাবে করে? কোন কোন স্মার্ট ফোনে eSim অপশান পাওয়া যায় এবং দাম কত?

 

আসুন জেনেনি এই ই-সিম সম্পর্কে :-

eSim কী?

eSim এম্বেডেড সিম হিসাবে পরিচিত। কারণ eSim ফোনের মাদারবোর্ডের উপর এম্বেডেড বা সোল্ডার থাকে। এই অপশনটি স্মার্ট ওয়াচ ও ড্রোনের উপর সাপোর্ট করে কারণ এর দ্বারা ডিভাইসে অতিরিক্ত সিম কার্ডের স্লট বানানোর ঝামেলা শেষ হয়ে যায়। র এই এম্বেডেড বা ডিজিটাল সিম ইউজার্সদের ফিজিকাল বা ন্যানো সিমের ব্যবহার না করেই নিজের কেরিয়ারের দ্বারা একটি সেলুলার প্ল্যানকে এক্টিভেট করার সুবিধা প্রদান করে। Airtel, Jio এবং Vodafone Idea হল ভারতে একমাত্র টেলিকোস যারা Android এবং iOS উভয়ই স্মার্টফোনে eSIM সাপোর্ট অফার করে।

 

সামঞ্জস্যপূর্ণ ফোন: জানিয়ে দি যে বেশিরভাগ Iphone এই অপশনটির সাপোর্ট করে। eSim Iphone 6 ও তার পরের ভার্সানগুলিতে কাজ করে। এই অপশনের সাপোর্ট করা সেগমেন্ট ফোন গুলির মধ্যে গ্যালাক্সি এস ২০ সিরিজ, এস ২১ সিরিজ ও সব জেড ফ্লোড স্মার্টফোন ও জেড ফ্লিপ যুক্ত রয়েছে। অন্য এন্ড্রয়েড স্মার্টফোনে Motorola Razr ও Google Pixel 2 আর তার পরবর্তী ভার্সান গুলি রয়েছে। কিন্তু এখানে সবচেয়ে বড় অসুবিধা হলো স্মার্ট ফোনকে এই টেকনোলজির অনুকূল হতে হবে। কোন কোন ফোন এই টেকনোলোজিকে সাপোর্ট করে তা জানতে আপনি আপনার স্ক্রিনে নামের জানকারী পাবেন।

eSim এক্টিভেশন প্রসেস: eSim চালু বা এক্টিভ করার প্রসেসটি অত্যন্ত সোজা। কিন্তু এটি অপারেটর থেকে অপারেটরে আলাদা আলাদা হয়। টেলিকম কোম্পানি eSim এর জন্য আলাদা করে টাকা চার্জ করে না। আর আপনার রেগুলার প্ল্যানও ওই নম্বরেই ফরওয়ার্ড করা হয়। এছাড়া Airtel, jio প্রিপেড ও পোস্টপেড দুটি প্ল্যানে eSim সাপোর্ট করা হয়। ভোডাফোন, আইডিয়া শুধু পোস্টপেড প্ল্যানে eSim অপশান প্রদান করে।

 

 

 

 

বেতনা নিউজ ২৪ /ত-প্র/ডে/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা