1. admin@betnanews24.com : Betna :
সত্যি কি ইচ্ছাকৃত ছিল চীনের সেই বিমান দুর্ঘটনা? | বেতনা নিউজ ২৪
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:৫১ অপরাহ্ন

সত্যি কি ইচ্ছাকৃত ছিল চীনের সেই বিমান দুর্ঘটনা?

বেতনা নিউজ ২৪ ডেস্ক :
  • প্রকাশিত : বুধবার, ১৮ মে, ২০২২
  • ৮৩ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্ক

চলতি বছরের ২১ মার্চ চীনে মাঝ আকাশ থেকে হঠাৎ আছড়ে পড়ে বিধ্বস্ত হয় একটি যাত্রীবাহী বিমান। ভয়ঙ্কর ওই ঘটনায় আরোহী ১৩২ জনের সবাই নিহত হন।

তবে এটি কোনও দুর্ঘটনা ছিল না, বরং ইচ্ছাকৃতভাবেই মাটিতে আছড়ে ফেলে বিধ্বস্ত করানো হয়েছিল বিমানটিকে।

ঘটনার প্রায় দুই মাস পর এমন চাঞ্চল্যকর দাবি করেছেন তদন্তকারীরা। মূলত বিধ্বস্ত সেই বিমানের ব্লাক বক্সের তথ্য বিশ্লেষণ করে এই দাবি করেছেন তারা। 

তদন্তে পাওয়া তথ্যের বিষয়ে জানেন এমন দু’জনের বরাত দিয়ে বুধবার বার্তাসংস্থা ‘রয়টার্স’ এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরেছে।

জানা গেছে, ঘটনার পর গভীর জঙ্গলে প্রায় সপ্তাহ খানেক অনুসন্ধান চালিয়ে উদ্ধার করা হয় বিমানের ব্ল্যাক বক্স। আর এই ব্ল্যাক বক্সই প্রাথমিকভাবে খতিয়ে দেখার পর চাঞ্চল্যকর এই তথ্য উঠে এসেছে।

মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের তদন্তে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতেই জানানো হয়, মার্চ মাসে দুর্ঘটনাকবলিত ওই বিমানটিকে ইচ্ছাকৃতভাবে মাটির দিকে নাক বরাবর নামিয়ে আনা হয়েছিল, যে কারণে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে।

এছাড়া চলতি সপ্তাহে মার্কিন সংবাদমাধ্য্যম দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মার্কিন কর্মকর্তা জানান, ব্ল্যাক বক্স থেকে পাওয়া তথ্যানুযায়ী- কোনও দুর্ঘটনা বা নিয়ন্ত্রণহীনতা নয়, ককপিট থেকে ইচ্ছাকৃতভাবেই বিমানটিকে প্রবল গতিতে মাটির দিকে নামিয়ে আনা হয়েছিল।

‘দুর্ঘটনা’র কবলে পড়া ওই বিমানটি ছিল মার্কিন বিমান প্রস্তুতকারক সংস্থা বোয়িংয়ের তৈরি। তাই ‘দুর্ঘটনা’র তদন্তে নেমে ব্ল্যাক বক্স খতিয়ে দেখে তারা। আর এরপর মার্কিন কর্মকর্তারা দাবি করেছেন, প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যাচ্ছে, ‘ইচ্ছে করে’ মাটির দিকে ধেয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল বিমানটিকে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক তদন্তকারীর বরাত দিয়ে ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের দাবি, “ককপিট থেকেই কারও নির্দেশে বিমানটি পরিচালনা করা হচ্ছিল।”

এর আগে চীনের পক্ষ থেকে এই ‘দুর্ঘটনা’র একটি প্রাথমিক রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়েছিল। সেখানে দাবি করা হয়েছিল, বিধ্বস্ত ওই বিমানে কোনও যান্ত্রিক ত্রুটি ছিল না। আর এরপরই নাশকতার তত্ত্ব আরও জোরালো হয়। মনে করা হচ্ছে, বিমানে থাকা কেউ একজন জোর করে ককপিটে প্রবেশ করে এই ‘দুর্ঘটনা’ ঘটিয়ে থাকতে পারে।

গত ২১ মার্চ চীনের কুনমিং থেকে গুয়াংঝুতে যাচ্ছিল বোয়িং ৭৩৭ মডেলের সেই বিমানটি। গুয়াঙশি এলাকায় এলাকায় সেটি ‘দুর্ঘটনার’ কবলে পড়ে। সূত্র: রয়টার্স, আল-জাজিরা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা